রচনা ঃ ক্লেয়ার

যতদিন পর্যন্ত গর্ভপাত করানোর ওপরে আইনি বাধা ছিল, ক্লিনিক এবং হাসপাতালের বাইরে ততদিন পর্যন্ত গর্ভপাত করানো হত। এই ধরনের গর্ভপাত করানো মহিলাদের পক্ষে খুব বিপজ্জনক হতে পারে কারণ অনেক সময়েই সেগুলি আনাড়ি স্বাস্থ্যকর্মীদের দ্বারা করা হত বা অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে করা হত।

এখন যদিও সারা পৃথিবীতেই ডাক্তারি পদ্ধতিতে গর্ভপাত করানোর বড়ি মহিলাদের কাছে ক্রমশ নাগালের মধ্যে চলে আসছে, গর্ভাবস্থার শুরুতে গর্ভপাতের ব্যবস্থার জন্যে বাড়িতে গর্ভপাত করানো একই সঙ্গে স্বাভাবিক এবং সুরক্ষিত বলে বিবেচিত হয়।

কিন্তু কোথা থেকে শুরু করতে হবে? গর্ভপাত সম্পর্কে সঠিক তথ্য খুঁজে পাওয়া কঠিন, এমনকি আপনি যখন নিজের পরিস্থিতি অনুযায়ী গর্ভপাত করানোর কোনো উপায় খুঁজছেন তখন তো আরোই সেটা হয়ে থাকে। সেই তথ্যের ঘাটতি মেটানোর জন্যে আমরা বাড়িতে সুরক্ষিতভাবে গর্ভপাত করানোর জন্যে নীচে নির্দেশিকাটি দিয়েছি।

গর্ভ ধারণ করেছেন কি না সেই বিষয়ে নিশ্চিত হোন

গর্ভাবস্থা শুরুর অনেক সম্ভাব্য লক্ষণ আছে, কিন্তু কি হতে পারে যদি মহিলাদের ক্ষেত্রে এইধরনের লক্ষণ অন্য কোনো কারণে ঘটে জানা নেই। মাসিক-এর সময় পেরিয়ে যাওয়াকে আমরা মনে করতে পারি সবথেকে বেশি গ্রহণযোগ্য লক্ষণ গর্ভ ধারণের ক্ষেত্রে, কিন্তু সেটারও কারণ কখনো অন্য কিছু হতে পারে।

বাড়িতে মূত্র পরীক্ষা করে গর্ভধারণের পরীক্ষা করা একটি সহজ, সুচিন্তিত, কম সময়ে করা যায় এমন একটি উপায়। আপনি প্রাথমিক গর্ভাবস্থা এবং তার দ্রুত নিষ্কাশন সম্পর্কে আরও পড়ে নিতে পারেন এখানে

গর্ভাবস্থা কতদিনের সেটা সপ্তাহ অনুসারে হিসেব করুন

একবার যখন আপনি বুঝতে পেরে গেলেন যে আপনি গর্ভবতী, তার পরে এটা বোঝা মুশকিল যে আপনার গর্ভাবস্থা কতদিনের। এই হিসেবটা গোলমেলে। সপ্তাহ অনুসারে গর্ভাবস্থা কতদিনের সেটা বুঝতে গেলে আপনাকে পিছিয়ে গিয়ে শেষতম মাসিকের শুরুর দিনটা মনে করতে হবে। আপনি আমাদের স্টেপ-বাই-স্টেপ ব্লগ থেকে গর্ভাবস্থা কতদিনের সেটা গোণার জন্যে আরও বেশি জানতে পারবেন।

সুরক্ষিত গর্ভপাতের জন্যে নীচে দেওয়া তথ্য এবং নির্দেশ গর্ভাবস্থার প্রথম ১০ সপ্তাহের জন্যে চলতে পারে। যদি আপনার সেই সময়কাল পেরিয়ে গিয়ে থাকে, তাহলে আমাদের বিভিন্ন দেশের প্রোফাইল -এ অন্যান্য নিরাপদ বিকল্পগুলির সম্বন্ধে আরও পড়ে নিতে পারেন, অথবা আমাদের স্বাস্থ্যকর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন www.womenhelp.org-এ।

আপনার জন্যে বিশেষভাবে দরকার এরকম কোনো বিষয় ভালো করে ভেবে দেখুন

আপনি কি রক্তাল্পতায় ভুগছেন? শিশুকে দুধ খাওয়ান? আইইউডি আছে? অনেকরকমের কারণ আছে যে কিছু মহিলা তাদের ডাক্তারি পদ্ধতিতে গর্ভপাত অন্যদের থেকে আরও খুঁটিয়ে লক্ষ্য করে থাকেন। আমাদের ওয়েবসাইট-এ কন্‌সিডারেশন্‌ বিভাগে আমরা এইধরনের সবগুলি কারণ দিয়ে থাকি এবং আপনাদের ভেবে দেখার জন্যে সমাধানও দিয়ে থাকি।

সুরক্ষিত, কার্যকরী গর্ভপাতের বড়ি নিয়ে রাখুন

সুরক্ষিত গর্ভপাতের বড়ি নেওয়ার ব্যাপারে কয়েকটি বিকল্প আছে। স্থানীয় ক্লিনিক-এ, হাস্পাতাল-এ বা ওষুধের দোকানে কিছু মানুষ সেগুলি পেতে পারেন। অন্যরা অন-লাইন স্বাস্থ্যসংগঠনের কাছে যেতে পারেন, যেমন www.womenhelp.org or www.womenonweb.org

অন্যদিকে আপনাকে নিশ্চিত হতে হবে যে আপনি সঠিক সংখ্যক বড়ি নিচ্ছেন। মাইফপ্রিস্টোন এবং মাইসোপ্রোস্টোল একত্রে গর্ভধারণের প্রথম ১০ সপ্তাহের মধ্যে নিলে একটি মাইফপ্রিস্টোন(২০০ মিগ্রা) এবং ৪টি মাইসোপ্রোস্টোল(২০০ মাইকোগ্রাম প্রতিটি)। গর্ভাবস্থার প্রথম ১০ সপ্তাহের মধ্যে কেবল মাইসোপ্রোস্টোল ব্যবহার করে গর্ভপাত করাতে গেলে ১২টি মাইসোপ্রোস্টোল-এর বড়ি (২০০ মাইকোগ্রাম প্রতিটি) দরকার হবে।

আপনার কি এটা ঠিক বলে মনে হচ্ছে? আমরা এই ওয়েবসাইট-এ বিভিন্ন ধরনের গর্ভপাতের বড়ির ছবি পছন্দ করে রেখেছি যেগুলি দেখলে আপনি অন্তত বুঝতে পারবেন যে আপনি কি খুঁজছেন।

ডাক্তারি পদ্ধতিতে গর্ভপাতের জন্যে সম্পূর্ণ নির্দেশিকা

প্রতিটি ধাপের জন্যে স্বস্তিতে থাকুন। আপনি ডাক্তারি পদ্ধতিতে গর্ভপাতের জন্যে সম্পূর্ণ নির্দেশিকা আমাদের ওয়েবসাইট-এ ইন্‌স্‌ট্রাক্‌শন্‌-এর পাতা য় পড়ে নিতে পারেন।

সম্ভাব্য জটিলতা সম্পর্কে সতর্ক থাকুন এবং একটি সেফ্‌টি প্ল্যান বানিয়ে নিন

ভালো করে বুঝে নিনঃ গর্ভাবস্থার ১০ সপ্তাহের মধ্যে ডাক্তারি পদ্ধতিতে গর্ভপাত করানো একটি সুরক্ষিত উপায়। (এমনকি পরিসংখ্যানের দিক দিয়ে এটা প্রসব করার থেকেও বেশি নিরাপদ।) কিন্তু তবুও যে কোনোরকম ডাক্তারি পদ্ধতির মতো আপনাকে একটি সেফ্‌টি প্ল্যান বানিয়ে রাখতে হবে। আমাদের ওয়েবসাইট্‌-এ জটিলতাগুলি এবং সেগুলো আপনি কিভাবে মোকাবিলা করবেন সেটা পড়ে নিন।

জেনে নিন গর্ভপাতের সময়ে এবং তার পরে কি কি ঘটতে পারে

গর্ভপাত চলাকালীন নিজের শান্তি এবং আরাম বজায় রাখতে আসল বিষয়টি হল কি কি ঘটতে পারে সেটা জেনে রাখা।পেশির খিঁচুনি হবে? হ্যাঁ। রক্তক্ষরণ হবে? হ্যাঁ। আর কি কি? কতক্ষণ ধরে? আমাদের ওয়েবসাইট-এ বড়ি ব্যবহারের পরে- অংশে কি কি ঘটে পারে সেই সম্পর্কে ভালো করে দেখে নিন।

এইসব বিষয় আগে থেকে জেনে রাখলে আপনি পরের ব্যাপারটা ভাবতে পারবেন। এমনকি আপনি একটা নিজের জন্যে গর্ভপাত করানোর পরের যত্ন নিজে কর - এইরকম জিনিসপত্রের থলি নিজেই করে নিতে পারবেন।

নিজে প্রস্তুত হলে তবেই গর্ভপাতের বড়িগুলি ব্যবহার করুন।

এই পর্যায়ে আপনাকে সকল তথ্য জেনে , যা যা লাগতে পারে সঙ্গে রেখে ভালোভাবে প্রস্তুত থাকতে হবে। প্রস্তুতি সেরে নেওয়ার পরে বড়িগুলি ব্যভার করুন।

নিজের খেয়াল রাখুন এর পর থেকে

আমরা ওপরে যেভাবে বলেছি, জটিলতা যদিও কমই আসে, কিন্তু আপনাকে সেগুলি নজরে রাখতে হবে। আপনাকে নিজের সার্বিক স্বাস্থ্য এবং ভালো থাকারও খেয়াল রাখতে হবে। মনে রাখবেন রক্তক্ষরণ বেশ কয়েক সপ্তাহ থাকতে পারে, কিন্তু যত দিন যাবে রক্তক্ষরণ তত কম হওয়ার কথা। পেশির খিঁচুনি মাইসোপ্রোস্টোল নেওয়ার কয়েক ঘন্টার মধ্যে সব থেকে বেশি হওয়ার কথা এবং তার পরে ধীরে ধীরে কম হবে। ২৪ ঘন্টার মধ্যে বেশির ভাগ মহিলা ক্রমশ ভালো বোধ করে থাকেন।

পরীক্ষা করে দেখুন যে আপনি আর গর্ভবতী নন

এই ধাপটি জরুরী না হলেও কিছু মহিলা গর্ভপাতের পরে আবার গর্ভ পরীক্ষা করিয়ে নিয়ে নিশ্চিত হতে চান যে তাঁরা আর গর্ভবতী নন। যদি আপনি গর্ভপাতের পরে আবার গর্ভ পরীক্ষা করাতে চান তাহলে সেটা গর্ভপাতের দুসপ্তাহ পরে করান। শরীরে হরমোনের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে একটু সময় লাগে। যদি আপনি খুব তাড়াহুড়ো করেন, তাহলে ভুল রিপোর্ট পেতে পারেন।

সুরক্ষিত গর্ভপাতের জন্যে আমাদের এই হোম গাইড্‌টি কেমন? এখনো প্রশ্ন আছে? আপনি আমাদের ওয়েবসাইট -এ আরও তথ্য অথবা সরাসরি আমাদের ই-মেল করতে পারেন info@howtouseabortionpill.org-তে।

আপনি আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলতে পারেন সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আরও সুরক্ষিত গর্ভপাতের খবরাখবরের জন্যে। আমরে আছি ফেসবুক, টুইটার, ইন্‌স্‌টাগ্রাম বা পিন্‌টারেস্ট -এ।

ক্লেয়ার একজন শিক্ষিকা, প্রজনন অধিকার প্রবক্তা এবং ম্যানেজার https://www.howtouseabortionpill.org/ -এর